পাশাপাশি দুই সিটেই যাত্রী বসিয়ে ৬০% বেশি ভাড়া নিচ্ছে বাসগুলো

এনবিনিউজ ডেস্ক:

‘ভাই সিট খালি নেই। পরের গাড়িতে যেতে পারবেন’

করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি বা সামাজিক দূরত্বের কোনোটিরই তোয়াক্কা করছে না গাইবান্ধার গণপরিবহনগুলো। তাদের নজর কেবল অতিরিক্ত ৬০% ভাড়া আদায়ের দিকে। সরেজমিনে গাইবান্ধা, পলাশবাড়ি এবং গোবিন্দগঞ্জ বাস টার্মিনালে গিয়ে এসব অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে।

বুধবার (১২ আগস্ট) ওই বাস টার্মিনালগুলোতে গিয়ে দেখা গেছে, পাশাপাশি দুই সিটে একজন বসার নিয়ম থাকলেও সব বাসেই পাশাপাশি সিটে বসছেন দুইজন। বাসে জীবাণুনাশক স্প্রে দেওয়াসহ এবং আনুষঙ্গিক কোনো নিয়মই মানছে না পরিবহনগুলো।

এসব নিয়ে পরিবহন চালক ও যাত্রীদের মধ্যে পাল্টপাল্টি অভিযোগেরও শেষ নেই।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় গোবিন্দগঞ্জ বাস টার্মিনাল থেকে একটি বাস ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা বাসে উঁকি মারতেই দেখা গেলো, বাসে কোনো সিট খালি নেই।

চালকের সহকারীকে (হেলপার) জিজ্ঞাসা করলে উত্তর এলো, “ভাই সিট খালি নেই। পরের গাড়িতে যেতে পারবেন।”

হেলপার সিফাত আরও জানায়, কোরবানির ঈদের আগ থেকেই তাদের পরিবহন সবগুলো সিট ভর্তি করে যাত্রী নিয়ে ঢাকা-কুমিল্লা রুটে চলাচল করছে।

একই অবস্থা দেখা গেছে অন্য একটি পরিবহনেও। এই পরিবহনের একটি বাসে ঢাকা থেকে গাইবান্ধা আসা মোশারফ হোসেন জানান, বাসে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক দূরত্ব কোনটাই মানা হচ্ছে না। তারপরও নেওয়া হচ্ছে ৬০% বর্ধিত ভাড়া।

“পরিবহনগুলো সরকার নির্দেশিত বর্ধিত ভাড়ার বিষয়টি মানলেও স্বাস্থ্যবিধি মানছে না।”
গাইবান্ধা জেলার অন্য দুই টার্মিনাল গোবিন্দগঞ্জ এবং পলাশবাড়ি থেকে বিভিন্ন রুটে ছেড়ে যাওয়া বাস-মিনিবাসগুলোতেও একই পরিবেশ দেখা গেছে।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More