গোবিন্দগঞ্জের খায়রুল বাশার নয়ন একজন সফল কৃষক

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি:
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রাখালবুরুজ ইউনিয়নের সম্ভ্রান্ত পরিবারে
জন্ম গ্রহণ করা সেই ছোট্ট ছেলে বর্তমান পৌর শহরের শিল্পপাড়ার বাসিন্দা
আলহাজ্ব খায়রুল বাশার নয়ন একজন প্রতিষ্ঠিত ঠিকাদার। ছাত্র জীবনে লেখাপড়ার
পাশা-পাশি কৃষির প্রতি আগ্রহ ছিল তার। আজ সেই কারনেই ঠিকাদারীর পাশা-পাশি
কৃষি কাজ শুরু করেন। তার পৈত্রিক ১০ শতক জমিতে প্রথমে মৌসুমী ফসলের
চাষাবাদ শুরু  করে। জমির উৎপাদিত ফসলে প্রাণ ভরে যায় তার। সেই যে
ভালোবাসা সৃস্টি হয় কৃষির উপর। বর্তমানে পাঁচ বিঘা জমিতে বিষমুক্ত মৌসুমী
সবজি চাষের মাধ্যমে একজন সফল কৃষি চাষী হিসাবে সু-নাম ছড়িয়ে পড়েছে নিজ
উপজেলা ছাড়াও পাশের উপজেলায়। এ কারনেই প্রতিদিন তার সমন্বিত বিষমুক্ত
সবজির ক্ষেত দেখতে ও পরামর্শ নিতে বিভিন্ন এলাকার কৃষক আসছে তার নিকট।

একজন সফল কৃষক হিসাবে খায়রুল বাশার নয়নের সাথে কথা হলে তিনি জানান, বিগত
কয়েক বছর ধরে তার জন্ম ভূমি রাখাল বুরুজ ইউনিয়নের নিজ গ্রামে পৈত্রিক
জমিতে সমন্বিত কৃষি খামার গড়ে তুলেন। সেই জমিতে সবজি চাষে সফলতা আসায়
কৃষি ক্ষেত্রে তার সম্প্রসারণ ঘটে ব্যাপক। বর্তমানে প্রায় ৫ বিঘা জমিতে
সমন্বিত বিষমুক্ত সবজি চাষ করছে। এতে করে উৎপাদন যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে
তেমনি আর্থিক ভাবে লাভবান হচ্ছে। তিনি আরো জানান, ক্ষেত জুড়ে আছে ফসলের
বৈচিত্রতা। একই জমিতে একসাথে চাষ হচ্ছে, মিষ্টি কুমড়া, পেঁপে, শিম,
বরবটি, ডাঙ্গা, টমেটো, বেগুন, মরিচ সহ নানা ধরণের শাকসবজি। নয়ন জানান,
তিনি তার কৃষি খামারে বিষমুক্ত পদ্ধতিতে চাষাবাদ করছেন। পোকা দমনে ক্ষেতে
ব্যবহার করছেন সেক্স ফ্রেমেন ফাঁদ। এছাড়াও রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে
জৈব সারের ব্যবহার করছেন। খামারের উৎপাদিত বিষমুক্ত শাকসবজি তার
পারিবারিক চাহিদাও মেটাচ্ছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, খায়রুল বাশার নয়নের ৫ বিঘা জমি যেন শস্য শ্যামলে
ভরা সবুজের সমারাহ। খামারের চতুর দিকে মাচা পদ্ধতিতে শিম ও বরবটি, মাচার
নিচে টমেটো, ভিতরে একপাশে রয়েছে মিষ্টি কুমড়া অপর পাশে রয়েছে নানা জাতের
বেগুন ও মরিচের চাষাবাদ। এ সব ফসলের মধ্যেই রয়েছে পেঁপে ও ডাঙ্গা সহ
বিভিন্ন ধরণের শাকের আবাদ। এই খামারে প্রতিদিন গড়ে ৬ থেকে ৮ জন কৃষি
শ্রমিক কাজ করে। নয়নের খামারে দেখা হয় তালুককানুপুর ইউনিয়নের কৃষক আব্দুর
রহিমের সাথে। তিনি বিষমুক্ত সমন্বিত সবজি খামার দেখতে ও পরামর্শ নিতে
এসেছেন। এছাড়াও নয়ন সবজি খামারের পাশাপাশি মৎস্য চাষ ও গঁবাদি পশুর খামার
গড়ে তুলেছেন।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা
মোস্তাফিজুর রহমান জানান, নয়ন তাদের কাছে বিভিন্ন সময় সবজি চাষে
প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে। পরে তিনি বিষমুক্ত সবজি খামার গড়ে তোলে। এতে করে
যেমন ফসল উৎপাদনে অর্থব্যয় কমে এসেছে তেমনি প্রাকৃতিক দূষণ কম হচ্ছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ছাহেরা বানু জানান, নয়ন একজন আদর্শ কৃষক।
ইতিমধ্যেই তিনি বিষমুক্ত সবজি খামার গড়ে তুলে এলাকায় দৃষ্টান্ত স্থাপন
করেছে। বিভিন্ন সময় তার খামার পরিদর্শন করে পরামর্শ ও প্রযুক্তিগত
সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে। তিনি আরো জানান, তাকে অনসুরণ করে এলাকার অন্যান্য
বেকাররা এ ধরণের সবজি ফসলের খামার গড়তে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। এ উপজেলায় নতুন
ভাবে কেউ কোন কৃষি খামার গড়ে তুলতে আগ্রহ হলে, প্রথমে তারা নয়নের কৃষি
খামার দেখে নিজেকে আরো বেশি আগ্রহী হয়ে উঠার পরামর্শ দিচ্ছেন বলে
গোবিন্দগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অফিস জানিয়েছেন।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More