শিরোনাম

বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় জাতীয় মহাসড়কে বিভিন্ন ফসল শুকানো অপসারণের অভিযান

Spread the love
মনজু হোসেন পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধিঃপঞ্চগড়
বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় মহাসড়ক ফসল মাড়াই, ঝাড়াই ও শুকানোর চাতাল হিসেবে ব্যবহার করে আসছে সড়কের উভয় পাশের স্থানীয় কৃষকেরা। উচ্ছেদ অভিযানে নেমেছে তেঁতুলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশ।
১২ জুন (বুধবার) সকালে তেঁতুলিয়া হাইওয়ের থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল কাদের’র নেতৃত্বে বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় জাতীয় মহাসড়কে বিভিন্ন ফসল শুকানো অপসারণের অভিযান পরিচালিত হয়। এসময় সহযোগিতা করেছেন তেঁতুলিয়া ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা। মহাসড়কের সিপাইপাড়া বাজার থেকে বুড়াবুড়ি বাজার পর্যন্ত কয়েক কি. মি. এলাকা জুড়ে সড়কের উভয় পাশের কৃষকদের অবৈধ ভাবে শুকাতে দেয়া ধান, গম, মরিচ বস্তায় ভরে দেন তেঁতুলিয়া হাইওয়ে থানার পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। পাশাপাশি কৃষকদের সচেতনতামূলক দিকনির্দেশনা প্রদান করেন।
জানা যায়, বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় জাতীয় মহাসড়কের উভয় পাশে স্থানীয় কৃষকরা তাদের জমির উৎপাদিত ফসল ধান, তিল, মরিচ, খর, গম ইত্যাদি অবৈধ ভাবে শুকিয়ে সড়ক দখল করে রাখায় যানবাহন ও জনচলাচলে বিঘ্ন ঘটতো।
তেঁতুলিয়া ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার ম্যান ওয়াহেদুল ইসলাম জানায়, সকাল থেকে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা কৃষকদের অবৈধ ভাবে ফসল শুকাতে দেয়া থেকে বিরত থাকতে সচেতনতা মূলক পরামর্শ প্রদান এবং তাদের ফসল বস্তায় ভরিয়ে দিয়ে সহযোগিতা করা হয়।
এদিকে অভিযান পরিচালনার প্রধান তেঁতুলিয়া হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল কাদের বলেন, কৃষকরা প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে সড়কে তাদের ফসল শুকায় এতে যান ও জনচলাচলের অনেক সমস্যা হয়। ঘটতে পারে যেকো সময় সড়ক দূর্ঘটনা। তাই আজ এ অভিযান চালানো হয়।
এবিষয়ে তেঁতুলিয়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনামুল হক বলেন, জনসাধারণ ও যান চলাচলের সুবিধার্থে এ অভিযান চালানো হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সবাই সচেতন হলে হয়তো কমে আসবে সড়কে ফসল শুকানো। আর এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *