বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৯:১৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম
গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ কর্তৃক ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার অসহায় দরিদ্রদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করলেন নায়ক নজরুল রাজ কুড়িগ্রাম বাসিকে ঈদুল ফিতরের  শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাংবাদিক রুহুল আমিন রুকু উখিয়ায় ৭ হাজার পিচ ইয়াবাসহ বয়োবৃদ্ধ মহিলা আটক রাণীশংকৈলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা তজির উদ্দিনের দাফন সম্পন্ন।।  সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি’র ঈদের শুভেচ্ছা রামুর ফতেখাঁরকুল আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অরূপ বড়ুয়া কালু মেম্বারের মৃত্যুতে এমপি কমলের শোক প্রকাশ বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধা প্রজন্ম লীগের কেন্দ্রী সদস্য আমান উল্লাহ মৌল্লার ঈদ শুভেচ্ছা নড়াইলে গভীর রাতে অসহায় মানুষের বাড়ি খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলেন। এসপি প্রবীর কুমার রায় হিমছড়িতে জাহেদী ফাউন্ডেশন ঝিনাইদহ’র উদ্যোগে হতদরিদ্রের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ উখিয়ার মেম্বার হেলাল উদ্দিনের প্রতিক্রিয়া- দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে জনগণের পাশে থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ নড়াইলে গাঁজার গাছসহ গ্রেফতার ১   নড়াইলে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকল্পে বাজার পরিদর্শন করলেন: এসপি প্রবীর কুমার রায় রাণীশংকৈলে আলী আকবর প্রতিবন্ধী স্কুলে ঈদ উপহার বিতরণ কুড়িগ্রামে অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করলেন অংকুর ফাউন্ডেশন কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ব্যাপক ভাবে সুপার ফুড খ্যাত স্পিরুলিনা চাষ হচ্ছে নড়াইলে চুইজাল গাছ চুরির অভিযোগে দুই শিশুর চুল কেটে দিলেন এলাকাবসী সাংবাদিক শ.ম.গফুর’র ঈদ শুভেচ্ছা ঘুমধুমের শাহজাহানের চিকিৎসায় উপজেলা চেয়ারম্যান শফিউল্লাহর ৫০ হাজার টাকা সহায়তা… নড়াইলে বিধবাকে বিবাহের ঘটনায় কওমী মাদ্রাসার হুজুর পলাতক
স্বামীজী এক রেলস্টেশনে!!

স্বামীজী এক রেলস্টেশনে!!

উজ্জ্বল রায়।।
স্বামীজী রাজস্থানের এক রেলস্টেশনে আছেন। সারাদিন তাঁর কাছে লোক আসছে। নানা প্রশ্ন তাদের। স্বামীজী সব প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন। লোক আসার শেষ নেই, স্বামীজীরও ধর্মপ্রসঙ্গের বিরাম নেই। এত লোক আসছে কেউ কিন্তু একবারও খোঁজ করছে না স্বামীজীর খাওয়া হয়েছে কিনা।
এই ভাবে পর পর তিনদিন সম্পূর্ণ অনাহারে থেকে স্বামীজী ধর্মপ্রসঙ্গ করে চলেছেন। জল পর্যন্ত খেতে পারেননি। তৃতীয়দিন রাত্রে সবাই চলে যাবার পর একটি গরীব লোক এসে তাঁকে জিঞ্জাসা করল, মহারাজ, আপনি তিনদিন তো অনবরত কথাই বলেছেন, জল পর্যন্ত খাননি। এতে আমার প্রাণে বড় ব্যথা লেগেছে।
স্বামীজীর মনে হল স্বয়ং ভগবানই দীনবেশে এসেছেন। তিনি বললেন :’ তুমি আমায় কিছু খেতে দেবে? ‘
লোকটি জাতিতে চামার, সে বলল : ‘আমার প্রাণ তো তাই চায়, কিন্তু আমার তৈরী রুটি আপনাকে দিব কি করে? আঞ্জা হয় তো আমি আটা ডাল এনে দিই, আপনি ডাল-রুটি বানিয়ে নিন। ‘
স্বামীজী বললেন : ‘না, তোমার তৈরী রুটিই আমায় দাও, আমি তা -ই খাব। ‘ লোকটি শুনে ভয় পেল —রাজা যদি জানতে পারে যে সে চামার হয়েও সন্ন্যাসীকে রুটি তৈরী করে দিয়েছে তবে হয়তো তাকে শাস্তি পেতে হবে। তবুও সাধুসেবার প্রবল আগ্রহে নিজের বিপদ তুচ্ছ করেও স্বামীজীর জন্য রুটি তৈরী করে নিয়ে এল। তার দয়া দেখে স্বামীজীর চোখে জল এল, ভাবলেন :আমাদের দেশের কুঁড়েঘরে এরকম কত মানুষ বাস করে, যারা বাইরে দীন -দরিদ্র -অন্ত্যজ কিন্তু অন্তরে মহান।
এদিকে স্টেশনের কয়েকজন ভদ্রলোকের নজরে পড়ল স্বামীজী চামারের হাত থেকে খাবার নিয়ে খাচ্ছেন। তারা এসে তাঁকে বলল : ‘আপনি যে নীচ ব্যক্তির ছোঁয়া খাবার খেলেন এটা কি ভাল হল। স্বামীজী উত্তর দিলেন : ‘তোমরা তো এতগুলো লোক আমাকে তিনদিন ধরে বকালে, কিন্তু আমি কিছু খেলাম কিনা তার কি খোঁজ নিয়েছিলে?
অথচ এ ছোট লোক হল, আর নিজেরা ভদ্র বলে বড়াই করছ? ও যে মনুষ্যত্ব দেখিয়েছে, তাতে ও নীচ হল কি করে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 nbnews71.com
Design & Developed BY NB Web Host