রামুতে তুচ্ছ ঘটনায় গৃহবধু নিহত ॥ আটক ৪

রামু (কক্সবাজার) প্রতিনিধি :
কক্সবাজারের রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের চেইন্দা পশ্চিম খোন্দকার পাড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ছালেহা বেগম (৩২) নামের এক গৃহবধূ নিহত হয়েছে। এঘটনায় নিহতের ছেলে মোহাম্মদ ইসমাইল গুরুতর আহত হয়। নিহত গৃহবধু ওই এলাকার হাফেজ মাওলানা আলী জোহারের স্ত্রী। চার ছেলে সন্তানের জননী ছালেহার ৭ মাসের একটি দুগ্ধজাত সন্তানও রয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে।
রামু থানা পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৪ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হল ওই এলাকার আব্দুর রহমান, তার ছোট ভাই আব্দুল হাকিম, আব্দুল মালেক ও শ্যালক শফিউল আলম।
স্থানীয় ইউপি সদস্য ফরিদুল আলম জানান, কিছুদিন আগে আব্দুর রহমানের এক মেয়ে প্রেমিকের হাত ধরে পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার মেয়েটি উদ্ধারও হয়। এ ঘটনার সঙ্গে হাফেজ মাওলানা আলী জোহারের স্ত্রী ছালেহা বেগমের স¤পৃক্ততা আছে সন্দেহে আব্দুর রহমানসহ কয়েকজন ঘরে ঢুকে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। মারধরে ছালেহা বেগম গুরুতর জখম হয়।
ছালেহা বেগমের ছেলে মোহাম্মদ ইসমাইল জানান, আব্দুর রহমানের ছোট মেয়ে জরুরী প্রয়োজনের কথা বলে আমার মাকে ডেকে তাদের ঘরে নিয়ে যায় এবং যাওয়ামাত্রই ঘরের দরজা বন্ধ করে মাকে ব্যাপক মারধর করে। খবর পেয়ে আমরা মাকে উদ্ধার করে আমাদের বাড়িতে নিয়ে আসি। তারা আবারো সদলবলে আমাদের বাড়িতে এসে হামলা চালায়। তাদের বেপরোয়া ছুরি ও দায়ের কোপে আমার মা ও আমি ব্যাপক আঘাতগ্রাপ্ত হই। স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় আমাদের উদ্ধার করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার মাকে মৃত ঘোষণা করে। আব্দুর রহমানের হাতে থাকা দায়ের কোপেই তার মা ছালেহা বেগমের মৃত্যু হয় বলে জানায় আহত ছেলে মোহাম্মদ ইসমাইল।
রামু থানার ওসি (তদন্ত) অরূপ কুমার চৌধুরী জানান, ঘটনার খবর পেয়ে রামু থানা পুলিশের একটি দল তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। তিনি জানান তাদের বিরুদ্ধে রামু থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। আটককৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। নিহতের লাশ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More