বাসাইলে সড়ক ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ১০ গ্রামের নিন্মাঞ্চলন প্লাবিত

কাওসার আলী, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:
টাঙ্গাইলের বাসাইলে সড়ক ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সড়কটি বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ হিসাবে ব্যবহার হতো। তাই বাধটি ভেঙ্গে নতুন করে বাসাইল উপজেলার দক্ষিণাঞ্চলের অন্তত ১০ গ্রামের নিন্মাঞ্চলন প্লাবিত হয়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলি জমি ও মাছের ঘের। গত শনিবার সকালে বাসাইল-নাটিয়াপাড়া সড়কের বাসাইল দক্ষিণ পাড়া এলাকায় সড়কের অংশ ভেঙ্গে যায়।
গত বছর বন্যায় বাসাইল-নাটিয়া পাড়া সড়কের পৌরসভার বাসাইল দক্ষিণ পাড়া এলাকায় একটি সেতু ভেঙ্গে যায়। পরে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে একটি প্রকল্প দিয়ে মাটি ভরাট করা হয়। সড়কটি বাসাইল, কাঞ্চনপুর ও হাবলা ইউনিয়ন ইউনিয়নবাসীর আঞ্চলিক যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। সড়কটি ব্যবহার করে বাসাইল উপজেলাবাসী মির্জাপুরের সাথে অতি সহজে যোগাযোগ করতে পারায় অল্প দিনেই সড়কটি পরিচিতি পায়। সড়কটি ব্যবহার করে উপজেলার ঢাকাগামী যাত্রীরা অল্প সময়ে ঢাকা পৌছাতে পারে। তাই সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ায় বিপাকে পরেছে এ সড়ক ব্যবহারকারীরা।
এই সড়ক দিয়ে বাসাইল উপজেলার আদাজান, কাঞ্চনপুর, বিলপাড়া, হাবলা, মির্জাপুর উপজেলার কুর্নী, ফতেপুর, পাটখাগুড়ী, মহেড়া, ভাতকুড়া, আদাবাড়ি এবং দেলদুয়ার উপজেলার নাটিয়াপাড়া, বর্নীসহ বিভিন্ন গ্রামের মানুষ বাসাইল উপজেলার যোগাযোগ করে। সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ায় এসব এলাকার মানুষের বাসাইল সদরের যাতায়াত বন্ধ হয়ে গেছে। অন্যদিকে সড়কটি বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ হিসাবে ব্যবহার হতো। এই বাধ ভেঙ্গে উপজেলার কাঞ্চনপুর ছনকা পাড়াসহ অন্তত ১০টি গ্রামের নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় এক শত পরিবার।
এ বিষয়ে ওই সড়কে চলাচলকারী সিএনজির  চালক আবদুল আলিম বলেন, এই সড়ক ব্যবহার করে আমরা গাড়ি চালাই। সড়কটি ভেঙ্গে  সড়ক পথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় আমরাও গাড়ি চালাতে পারছি না।
এ বিষয়ে পথচারী মমিন মিয়া বলেন, সড়কটি অতি গুরুত্বপূর্ন। তাই এই স্থানে দ্রুত একটি বেইলি সেতু স্থাপন করলে সড়কটি ব্যবহারকারীদের জন্য মঙ্গল হবে।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনজুর  বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত ভাঙ্গন কবলিত সড়কটি পরিদর্শন শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে উর্ধ্বোতন কর্তৃপক্ষকে লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে বলেও তিনি জানান।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More