মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
সুন্দরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-১, আহত-৩ করোনায় আক্রান্ত গোবিন্দগঞ্জের সাবেক সাংসদ অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ গৃহবধুকে নির্মম নির্যাতনের পর পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার করে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু’র সমাধিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড.এ.কে.আব্দুল মোমেন এমপি’র শ্রদ্ধা গোবিন্দগঞ্জে বর্ন্যাতদের মাঝে স্বেচ্ছাসেবক লীগের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কুড়িগ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু, গ্রেপ্তার ৩ গাইবান্ধার ২১০০ হতদরিদ্র পরিবার পেল কোরবানি কর্মসূচির মাংস এনবিনিউজ একাত্তর ডটকম’র নির্বাহী সম্পাদকের ঈদ শুভেচ্ছা গাইবান্ধার পুলিশ সুপার ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কর্তৃক মেহেরুননেছা বৃদ্ধাশ্রম পরিদর্শন গোবিন্দগঞ্জ মাদকের শিকড় উৎপাটনের অংশ হিসাবে ২ ঘটনায় মাদকসহ ৪ জন আটক 
বন্ধুর মেয়েকে তিনবছর থেকে ধর্ষণ!

বন্ধুর মেয়েকে তিনবছর থেকে ধর্ষণ!

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় (কচাকাটা পুলিশ স্টেশন) বন্ধুর মেয়ে অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে তিন বছর ধরে নিজের লালসার শিকার বানিয়েছে আরেক বন্ধু। নিগৃহীত মেয়েটি জানিয়েছে ,যখন সে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তখন বাবার ওই বন্ধু তার শশুর বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে গিয়ে প্রথম ধর্ষণ করে। পরে তিনবছর যাবত অসংখ্যবার তাকে মিলনে বাধ্য করেছে সে। বুধবার সকাল ৯টায় মিলনরত অবস্থায় আটকিয়ে ঘটনাটি জনসম্মুখে নিয়ে আসে ওই ধর্ষকেরই স্ত্রী। এদিকে ধর্ষক প্রভাবাশালী হওয়ায় ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে উঠেপড়ে লেগেছে একটি মহল।
ঘটনাটি ঘটেছে জেলার ভূরুঙ্গামারী উপজেলার (কচাকাটা পুলিশ স্টেশন) বলদিয়া ইউনিয়নের পূর্বকেদার গ্রামে। ওই গ্রামের কুদ্দুস প্রধানীর ছেলে দুই সন্তানের জনক মকবুল হোসেন প্রধানী(৪৫)তিন বছর থেকে নিজের লালসার শিকার বানিয়েছে একই গ্রামের বন্ধু সকিয়ত মিয়ার মেয়ে এবং কাশেম বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর শিক্ষার্থী কুসুম (ছদ্দনাম) (১৪) কে। কুসুম (ছদ্দনাম) জানায়, বাবার বন্ধু হওয়ায় মকবুল তাদের বাড়িতে যাতায়াত করতো এবং প্রতিবেশী হওয়ায় কুসুমও (ছদ্দনাম) মকবুলের বাড়িতে যাতায়াত করত। যাতায়াত সূত্রে মকবুলের স্ত্রী মুক্তার সাথে তার সখ্যতা গড়ে উঠে। সে আরোও জানায়, ব্যাপারীটারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ার সময় মকবুল এবং তার স্ত্রী মুক্তা বেগমের সাথে নাগেশ্বরী উপজেলার শাপখাওয়া গ্রামে তার (মুক্তার) বাপের বাড়িতে বেড়াতে যায়। সেখানে একটি ঘরে মকবুল এবং কুসুমকে (ছদ্দনাম) রেখে মকবুলের স্ত্রী মুক্তা বাইরে থেকে ঘরের দরজা আটকিয়ে দিয়ে চলে যায়। সেখানেই মকবুল তাকে জোড় করে ধর্ষণ করে। পরে কান্নাকাটি করলে মকবুল তাকে বিয়ের প্রলোভন দেয় এবং পরে কুড়িগ্রাম নিয়ে গিয়ে তাকে মৌখিক বিয়ে করে। সেই থেকে তিন বছরে যখন তখন তাকে ডেকে মিলনে বাধ্য করতো মকবুল।
বুধবার সকালে তার (মেয়েটির)বাড়ির মোবাইল নাম্বারে ফোন দিয়ে পার্শবর্তি ভ্যান চালক শামছুলের বাড়িতে ডেকে নিয়ে মিলনে বাধ্য করে মকবুল। এদিকে মকবুলের স্ত্রী মুক্তা এসে তাদেরকে হাতে নাতে আটক করে তাকে মারধোর করতে থাকে। পরে একই এলাকার আনছার আলীর ছেলে মিন্টুসহ কয়েকজন গ্রামবাসী তাকে উদ্ধার করে। এসময় মকবুল পালিয়ে যায়।
এদিকে মেয়ের এমন কান্ডে লোকলজ্জায় বাড়িতে ঠাই দেয় নাই মেয়েটির পিতা মাতা। পরে গ্রামবাসী স্থানীয় জুরান আলীর বাড়িতে নিয়ে আসে কুসুমকে (ছদ্দনাম)। সেখান থেকে ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেনের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।
সাবেক ইউপি সদস্য গোলাম হায়দার জানান, মেয়েটির বাবা মেয়েটিকে বাড়িতে তোলেননি তাই স্থানীয় ইউপি সদস্যর জিম্মায় তার বাড়িতে রাখা হয়েছে।
ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন জানান, বিষয়টি নিয়ে আমরা আলোচনা চালাচ্ছি দেখি শেষ পর্যন্ত কি করা যায়।
কচাকাটা থানার ওসি (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে সবার সাথে কথা বলেছি, এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 nbnews71.com
Design & Developed BY NB Web Host