প্রথম পরিচয়ে আইনজীবী মনিকে বিয়ে করলেন পঞ্চগড়ের রেলমন্ত্রী

মনজু হোসেন স্টাফ রিপোর্টার :

একাকিত্বের অবসান ঘটিয়ে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার মেয়ে শাম্মী আকতার মনিকে (৪২) বিয়ে করেছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। শুক্রবার (১১ জুন) সকাল ৯টায় বিয়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাম্মী আকতার মনির বড় ভাই জাহিদুল ইসলাম মিলন হোসেন। গেল শনিবার (০৫ জুন) ইসলামী শরিয়ত ও সরকারি আইন মেনে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। শাম্মী আকতার মনি দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার নতুন বাজার এলাকার মৃত আব্দুর রহিমের মেয়ে। তারা দুই ভাই এক বোন। জানা যায় , বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের ( ​পিডিবি ) লাইনম্যান পদে চাকরির সুবাদে কয়েক বছর আগে আব্দুর রহিম দিনাজপুরের বিরামপুরে আসেন। তারপর বিরামপুরেই থেকে যান। এরপর বিরামপুরের নতুন বাজার এলাকায় জায়গা কিনে সেখানেই বাড়ি করে স্থায়ী হন। জাহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, আমার বোন শাম্মী ঢাকার উত্তরায় থাকেন। সে আইন বিষয়ে পড়াশোনা শেষ করে হাইকোর্টে এক সিনিয়রের সঙ্গে প্র্যাকটিস করছেন। আইনি বিষয়ে পরামর্শ নিতে ২০ দিন আগে রেলমন্ত্রী ও সুপ্রীম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী এডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজনের কাছে যায় আমার বোন। পরে আমার বোনকে মন্ত্রীর পছন্দ হয়। পারিবারিক ভাবে ৫ জুন উত্তরায় আমার বোনের বাসায় তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। বিয়েতে বরপক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলার বিরামপুরের বাসিন্ধা বিচারপতি ইজারুল হক ও তার স্ত্রী। কনে পক্ষ থেকে আমি ও আমার ভাই উপস্থিত ছিলাম। উল্লেখ্য, নূরুল ইসলাম সুজনের স্ত্রী নিলুফার জাহান ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে মারা যান। তাদের এক ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। ছেলে কৌশিক নাহিয়ান নাবিদ সদ্য ব্যারিষ্টার পাশ করেছে। রেলমন্ত্রীর তিন সন্তানেরই বিয়ে হয়েছে। ৬৫ বছর বয়সী নূরুল ইসলাম সুজন ১৯৫৬ সালের ৫ জানুয়ারি পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ময়দানদীঘি ইউনিয়নের মহাজনপাড়া এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তার ভাই বীরমুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট সিরাজুল ইসলামও একই আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তার মৃত্যুর পর নুরুল ইসলাম সুজন তার আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন। তার হাত নুরুল ইসলাম সুজনের রাজনীতিতে আসা। পঞ্চগড়-২ আসন (বোদা-দেবীগঞ্জ) থেকে নবম, দশম এবং একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ২০১৮ সালে নির্বাচিত হওয়ার পর রেলমন্ত্রী হন তিনি। তিনি সুপ্রীমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার অন্যতম কৌশুলী ছিলেন। এছাড়াও তিনি পঞ্চগড় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More