তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্রে করে রাণীনগরে গৃহবধুকে আটকে রেখে নির্যাতন

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্রে করে শাম্মি আক্তার (১৮) নামের এক গৃহবধুকে ঘরের ভিততে আটকে রেখে নির্যাতন করেছে তার পাষান্ড স্বামী। বুধবার বিকেলে উপজেলার কালিগ্রাম ইউনিয়নের সিলমাদার গ্রামে এই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। রাতে রাণীনগর থানার এএসআই মো: হাফিজুল ইসলামের সহযোতিায় শাম্মি আক্তারকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

জানা গেছে, উপজেলার কালিগ্রাম ইউনিয়নের সিলমাদার গ্রামের মো: ইলিয়াস সরদারের ছেলে মো: মিলন সরদারের সাথে একডালা ইউনিয়নের বিষঘড়িয়া গ্রামের মো: রেজাউল করিমের মেয়ে শাম্মি আক্তারের সাথে মিলন সরদারের প্রেমের সম্পর্র্কে ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে মিলন সরদার তার স্ত্রীকে বিভিন্ন কারনে অকারনে মারপিট করে। এদিন বিকেলে রান্নার বিষয় নিয়ে শাম্মি আক্তারকে ঘরে আটকে রেখে মরমার্ন্তিক নির্যাতন করে তার স্বামী মিলন। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি জানতে পেরে তার পরিবারকে খবর দিলে পুলিশের সহযোহিতায় শাম্মি আক্তারকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রাণীনগর সদর হাসপাতালে করানো হয়।

নির্যাতনের স্বীকার শাম্মি আক্তার জানান, আমার স্বামী বিয়ের পর থেকে কারনে অকারনে আমাকে মারপিট করে। এদিন বিকালে রান্নার বিষয় নিয়ে আমাকে ঘরে আটকে রেখে নির্যাতন করেছে আমি এর সুষ্ট বিচারের দাবি জানাচ্ছি। তিনি আরো জানান, আমি লোকমুখে জানতে পারি আমার স্বামী নাকি নেশা করেন।

এব্যাপারে নির্যাতনকার্রী শাম্মি আক্তারের স্বামী মো: মিলন সরদারের সাথে কথা বললে তিনি জানান, দোষ করেছে তাই আমি মেরেছি।

এব্যাপারে রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান জানান, শাম্মি আক্তারকে নির্যাতন করার ঘটনাটি আমি জানতে পেরে পুলিশ পাঠিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, এবিষয়ে থানায় কোন অভিযোগ বা মামলা হয়নি তবে অভিযোগ পেলে আইননুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More