শিরোনাম

চেতনানাশক ওষুধ মেশানো খাবার খেয়ে অজ্ঞান ৫ জন ও টাকা,স্বর্নালঙ্কার,মালামাল লুট।

Spread the love
শরণখোলা প্রতিনিধিঃ
বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলায় রাতের খাবারের সাথে চেতনানাশক দ্রব্যের মিশিয়ে অজ্ঞান করে দুর্বৃত্তরা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে গেছে। অপরদিকে ফেনী থেকে শরণখোলায় আশার পথে বাসে অজ্ঞান পার্টির কবলে পড়ে এক বাসযাত্রী নগদ টাকা হারিয়েছে।  রবিবার দুটি ঘটনায় সকালে ৫ জনকে অজ্ঞান অবস্থায় নিজ বাড়ি ও যাএীবাহী বাস থেকে নিয়ে এসে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ব্যক্তিরা  হলেন, উত্তর বাধাল গ্রামের হাফেজ লুৎফর রহমানের স্ত্রী সালেহা বেগম (৫৫), একই গ্রামের সুলতান ফরাজী (৭০), তার পুত্রবধু রেহেনা বেগম (২৮), নাতি ছিয়াম (৪) এবং ফেনী থেকে রিফাত পরিবহনে আসা বাসযাত্রী ধানসাগর গ্রামের জামাল সরদার (৪৮)।
ধানসাগর ইউনিয়নের উত্তর বাধাল ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বর আসাদুজ্জামান স্বপন জানান, দুর্বৃত্তরা শনিবার সন্ধ্যায় উত্তর বাধাল গ্রামের লুৎফর রহমানের ঘরের রাতে খাবারের সাথে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে রেখে যায় পরে রাতে ওই খাবার খেয়ে লোকজন অচেতন হয়ে পড়ে।
এই সুযোগে ঘরের বেড়া কেটে দুর্বৃত্তরা ভেতরে ঢুকে আলমারি ভেঙ্গে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মালামাল নিয়ে যায়। বাসযাত্রী জামাল সরদারের স্ত্রী  জানান, তার স্বামী ফেনী থেকে রিফাত পরিবহনের একটি বাসে শরণখোলায় আসছিলেন। তখন তার পাশের সিটে বসা যাত্রীর দেয়া বিস্কুট ও পানি খেয়ে জামাল সরদার অচেতন হয়ে পড়লে তার কাছে থাকা  নগদ ২০হাজার পাঁচশত টাকা নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে বাস রায়েন্দা স্টেশনে পৌঁছালে তাকে নামতে নাম দেখে রবিবার সকালে বাসের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ দিলীপ কুমার সরকার জানান, এ ব্যাপারে থানায় কেউ কোন অভিযোগ দায় করেননি।
 বিস্তারিত জেনে পরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *