গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতালরা দীর্ঘদিন পর বাহা পরবে বাঁধ ভাঙ্গা উৎসবে মেতে উঠলো

আলমগীর হোসেন গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি:ঃ
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল সম্প্রদায় নিজস্ব ঐতিহ্যে নেচে-গেয়ে আনন্দের সাথে বরণ করলেন ঋতুরাজ বসন্তকে। নিজস্ব কৃষ্টি বাহা পরবে মাতলো গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল পল্লী। গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাঁওতাল পল্লী বাগদা বাজার কাটাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন মাঠে বাহা পরব বা বসন্ত উৎসবে মেতে ওঠে আদিবাসী সাঁওতালরা। শনিবার বাহা পরব উদ্্যাপন কমিটি, এনডিএফ ও পারগানা পরিষদের আয়োজনে উৎসবে ইউএনডিপি-হিউম্যান রাইটস্্ প্রোগ্রাম ও অবলম্বন পৃষ্ঠপোষকতা করে। নেচে-গেয়ে আনন্দ উল্ল¬াসের মাধ্যমে আদিবাসী সাঁওতালরা তাদের নিজস্ব কৃষ্টি সংস্কৃতিতে বাহা পরবের মাধ্যমে বরণ করেন ঋতুরাজ বসন্তকে।

দিনভর ধর্মীয় পুজা-অর্চনা ও উত্তর জনপদের জনপ্রিয় সাঁওতাল সাংস্কৃতিক সংগঠনের পরিবেশনায় মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক সাঁওতাল নারী-পুরুষ-কিশোরী অংশ নেন। বিভিন্ন বর্ণের আদিবাসী-বাঙালিদের আগমনে মিলন মেলায় পরিণত হয় গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল পল্ল¬ী। পরে স্থানীয় আদিবাসী শিল্পীদের পাশাপাশি আমন্ত্রিত সাঁওতাল সাংস্কৃতিক দলের সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশনা দর্শকদের মুগ্ধ করেন। এতে সাঁওতাল জনগোষ্ঠীর ৬টি ইউনিয়নের ৮টি সাংস্কৃতিক দল অংশগ্রহণ করে।
গত বছরের ৬ নভেম্বর গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল হত্যা ও তাদের বসতবাড়ী থেকে উচ্ছেদের দেড়বছর পর উৎসবের আয়োজন করা হলো। দীর্ঘদিন পর এ ধরনের উৎসবের সুযোগ পেয়ে সাঁওতালরা সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত উৎসবের মহড়া দিতে থাকে। উৎসবের জন্য কেনা হয় নতুন কাপড়। উৎসবস্থল আদিবাসীদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া সম্বলিত ফেস্টুনে সুসজ্জিত করা হয়।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More