গোপালগঞ্জে বেসরকারী কর্মচারীদের চাকুরী সরকারী করার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি :
গোপালগঞ্জে সমগ্র বাংলাদেশের সরকারী কলেজের বেসরকারী কর্মচারীদের চাকুরী রাজস্বখাতে দেওয়ার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে সরকারী কলেজের বেসরকারী কর্মচারী ইউনিয়ন।
আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় গোপালগঞ্জ সরকারী বঙ্গবন্ধু কলেজের প্রসাশনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সারাদেশে ৪শত ৪৭টি কলেজের কর্মচারীরা একত্রিত হয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন।
কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মো: দুলাল সরদারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গোপালগঞ্জ সরকারী বঙ্গবন্ধু কলেজের ইংরেজী বিভাগের প্রভাষক গোলাম মোস্তফা, নারায়নগঞ্জ সরকারী কলেজের কম্পিউটার অপারেটর ও কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলা সম্পাদিকা অঞ্জনা রায়, গোপালগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি মো: আলী আজাদ, কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা ও গোপালগঞ্জ সরকারী বঙ্গবন্ধু কলেজের কর্মচারী মো: বেলাল হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা বলেন, ১৫ বছরের অধিককাল ধরে নিয়োগপ্রপ্ত হয়ে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর ৬হাজার কর্মচারী হিসাবে কর্মরত আছি। আমাদের মাসিক বেতন ৩হাজার থেকে ৭ হাজার টাকা দেওয়া হয়। এই অল্প বেতনে আমরা পরিবার নিয়ে খুব কষ্টে দিন যাপন করছি। সরকারী কলেজ ও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি ২ হাজার ১৩ সালে জনবল নিয়োগ দেওয়া হয় কিন্তু বেসরকারী কর্মচারীদের কোন অগ্রঅধিকার দেওয়া হয়নি। গত বছরে একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলে হাইকোর্টের একটি রিট মামলায় নিদের্শনা মোতাবেক অগ্রঅধিকার থাকলে মাউশি কতৃপক্ষ তা মানেনি। বর্তমান করোনাকালে অনেক কর্মচারীর চাকুরীও চলে গেছে।
তারা আরও বলেন, সারা দেশে কলেজে মাত্র ৫% সরকারী লোক সরকারীভাবে কর্মরত আছে। বাকি ৯৫% বেসরকারী লোক আমরা কাজ করি। আমাদের মেয়েরা মাতৃত্বকালিন ছুটিতে গেলে বেতন কর্তন করে যেতে হয়। সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়োজিত বেসরকারী কর্মচারীদেরকে নিয়োগের তারিখ হতে চাকুরী সরকারীকরনের ও চাকুরী সরকারী করনের পূর্ব পর্যন্ত সরকারী স্কেলে বেতনভাতা প্রদানের দাবী জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলনে সঞ্চলনা করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি ও সুনামগঞ্জ সরকারী কলেজের কম্পিউটার অপারেটর শাহ ওমর ফারুক।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More