গাইবান্ধায় স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার সক্ষমতা অর্জন করায় প্রেস ব্রিফিং

অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘ কর্তৃক স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার সক্ষমতা অর্জনের স্বীকৃতি প্রদান করায় মঙ্গলবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। গাইবান্ধা জেলা প্রশাসন ও জেলা তথ্য অফিস এই প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করে। জেলার সকল প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা এতে অংশ নেয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধণ করেন জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল। এতে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সাদিকুর রহমান, জেলা তথ্য অফিসার সাবিহা আকতার লাকি এবং সাংবাদিকদের মধ্যে গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু, যুগান্তরের গাইবান্ধা প্রতিনিধি গোবিন্দলাল দাস, একুশে টিভির আফরোজা লুনা, বাসসের সরকার শহিদুজ্জামান, শামীম আল সাম্য প্রমুখ।

প্রেসব্রিফিংয়ে উল্লেখ করা হয়, জাতিসংঘের সিডিসি’র পর্যালোচনা সভায় গত ১২ থেকে ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় বাংলাদেশ প্রাথমিকভাবে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের মানদন্ড পূরণ করেছে বলে স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। সিডিসি’র মূল্যায়ন সূচক অনুসারে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ১ হাজার ২শ’ ৭২ মার্কিন ডলার এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতার সূচক ২৫ মার্কিন ডলার এবং মানব সম্পদ সূচক ৭২.৮ নির্ধারিত হয়। ফলে পরবর্তী ২০২১ এবং ২০২৪ সালে প্রতিদিন ৩ বছরের মূল্যায়ন অতিক্রম করতে পারলেই ২০২৪ সাল থেকে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে হিসেবে জাতিসংঘের স্বীকৃতি লাভ করবে। বর্তমান সরকারের নেতৃত্বে উন্নয়নে এই অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন এবং ২০৪১ সালে স্বপ্নের উন্নত দেশে পরিণত হবে বলে প্রেসব্রিফিংয়ে উল্লেখ করা হয়।

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসন এ উপলক্ষে ২০ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত ৬ দিনের ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে ২০ মার্চ প্রেস ব্রিফিং এবং শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন ও কুইজ প্রতিযোগিতা, ২১ মার্চ প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের জন্য সরকারি বালক বিদ্যালয়ে রচনা প্রতিযোগিতা, ২২ মার্চ বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও শোভাযাত্রা, ২৪ মার্চ সকাল ১০টায় স্বাধীনতা প্রাঙ্গণে গ্রামীণ কাবাডি ও লাঠি খেলা প্রতিযোগিতা এবং সন্ধ্যায় শহীদ মিনার চত্বরে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আতশবাজি। এছাড়া ২০ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত সকল সরকারি অফিসে সেবা সপ্তাহ উদযাপন করা হবে।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More