রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
কুড়িগ্রামে রেলের জমি থেকে উচ্ছেদকৃত বাস্তহারাদের ডিসি অফিস অবস্থান কর্মসূচি জয়পুরহাট পৌরসভার সীমানা বর্ধিত করে পল্লী এলাকাকে সংযুক্ত করার প্রতিবাদ গোবিন্দগঞ্জে দুবৃর্ত্তদের হাতে আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্কুল ছাত্রের মৃত্যু গোবিন্দগঞ্জে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত স্বামীকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী হবেন নুসরাত ফারিয়া ‘আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় শুরু হয় তখন যখন আমি কেবিসি জিতি’ -সুশীল কুমার। রাণীশংকৈলে পেঁয়াজে গড়ম ঝাঁঝ, প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১০০ টাকা নড়াইল কালনা সড়কের উপরে মাছের  আড়ৎ  রাণীশংকৈল পৌরসভা নির্বাচন, সাম্ভাব্য প্রার্থীদের আগাম গণসংযোগ নড়াইলে ডিবি পুলিশের অভিযানে পলাতক দুই আসামি ৯৭ পিচ ইয়াবাসহ গ্রেফতার   
কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে জনবল নিয়োগের টেন্ডারে জালিয়াতি ও দুর্নীতি

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে জনবল নিয়োগের টেন্ডারে জালিয়াতি ও দুর্নীতি

স্টাফ রিপোর্টার: ২৫০ শয্যা বিশিষ্ঠ কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে দুর্নীতি একটি নিয়মিত কর্মসূচিতে পরিণত হয়েছে। গতকাল দেশের অধিকাংশ সংবাদ মাধ্যমে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পথ্য,ধূপি, স্টেশনারী ও নন -স্টেশনারী মালামাল সরবরাহের টেন্ডার গোপন সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশিত হলে হাসপাতাল কতৃপক্ষ চাপের মুখে উক্ত টেন্ডার বাতিল করেন। যার সূত্রঃ জেনা:হাস:/কুড়ি:কমিটি /২০১৯-২০২০/৯৯৮ তারিখঃ ০৮.০৬.২০২০ ইং।

এরই মধ্যে আরেকটি টেন্ডারের দুর্নীতি ও জালিয়াতির খবর উম্মোচিত হয়েছে। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে ২৯ জন ক্লিনার ও সিকিউরিটি গার্ড নিয়োগের টেন্ডার ইতোপূর্বে সম্পন্ন হয়েছে। এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ২০ জন ক্লিনার ও ৯ জন সিকিউরিটি গার্ড নিয়োগ প্রদানের লক্ষ্যে যথাযথ টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে রংপুরের স্বরলিপি সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেড চূড়ান্ত দরদাতা হিসাবে মনোনীত হয়। কিন্তু মনোনীত ঠিকাদারের অগোচরে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে দীর্ঘদিন যাবৎ চিহ্নিত একটি চক্র গোপনে এই নিয়োগ সম্পন্নের পাঁয়তারা শুরু করে। চুক্তিনামা সম্পাদন ও কার্যাদেশের পত্র গোপন করে চিহ্নিত চক্রটি প্রতিটি নিয়োগের বিপরীতে দেড় লক্ষ থেকে দুই লক্ষ টাকা গ্রহণ করে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পাদনের অপচেষ্টা চালায়।

বিষয়টি টের পেয়ে রংপুরের স্বরলিপি সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেড এর স্বত্বাধিকারী রেজাউল করিম হাসপাতাল কতৃপক্ষের নিকট চুক্তিনামা সম্পাদনের পত্রের জন্যে দাবি জানায়। এর প্রেক্ষিতে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ঠ কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল এর তত্বাবধায়ক ডাঃ জাকিরুল ইসলাম এর স্বাক্ষরিত চুক্তিনামার পত্র গত ৩রা জুন ২০২০ইং এ স্বরলিপি সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেড এর মেইলে প্ৰেৰণ করা হয়। সূত্রঃ জেনা:হাস:/কুড়ি:কমিটি /২০১৯-২০২০/৮৬৬/১(৪) তারিখঃ ২০.০৫.২০২০ ইং। এই পত্র প্রাপ্তির ৪ মিনিট পরে তিনি একই মেইলে কার্যাদেশের পত্রটিও পান যার সূত্রঃ জেনা:হাস:/কুড়ি:কমিটি /২০১৯-২০২০/৮৭২ তাং ২২.০৫.২০২০ ইং।

চুক্তিনামা সম্পাদন ব্যতিরেকে এবং ১৪ দিন পরে ইস্যু কৃত পত্র প্রাপ্তিতে ঠিকাদার বিস্ময় প্রকাশ করে অসঙ্গতিসমূহ দূর করে নতুন করে চুক্তিনামা সম্পাদন ও কার্যাদেশ প্রাপ্তির লক্ষ্যে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল এর তত্বাবধায়ক বরাবর একই তারিখে স্বাক্ষরকৃত পত্র গত ৪ জুন ২০২০ ইং এ হাসপাতালে জমাদান ও মেইলে প্রেরণ করেন। স্বরলিপি সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেড এর স্বত্বাধিকারী লিখিত অভিযোগে জানান যে, তার স্বাক্ষর, সিলমোহর, প্যাড জাল করা হয়েছে। তিনশত টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে হাসপাতাল কতৃপক্ষের সঙ্গে তিনি কোন চুক্তি সম্পাদন করেননি এবং জামানতের ৪৭ হাজার টাকার পে-অর্ডারও প্রদান করেননি।

এ প্রসঙ্গে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল এর তত্বাবধায়ক ডাঃ জাকিরুল ইসলামকে ফোন করে জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেন নি। প্রকৃত ঠিকাদারের সঙ্গে চুক্তিনামা ব্যতিরেকে কার্যাদেশ প্রদানের বিষয়টি ভিডিও রেকর্ডিংয়ে তার সাক্ষাৎকার চাইলে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে জনবল নিয়োগের চূড়ান্ত ঠিকাদার স্বরলিপি সিকিউরিটি সার্ভিসেস প্রাইভেট লিমিটেড এর স্বত্বাধিকারী রেজাউল করিমের নিকট বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন বিধিমোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষকে সকল বিষয় লিখিত আকারে অবহিত করেছি। আশা করি কতৃপক্ষ দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তিনি আরও জানান সকল বৈধ কাগজপত্র সম্পাদন পূর্বক তিনি টেন্ডার দাখিল করে যোগ্যতা প্রমান স্বাপেক্ষে মনোনীত হয়েছেন। বিভিন্ন মিডিয়ায় তার প্রতিষ্ঠানের উত্থাপিত অভিযোগ সম্পর্কে বলেন, যারা জাল জালিয়াতির মাধ্যমে জনবল নিয়োগের পায়তারা করেছে তাদেরই মিথ্যে অভিযোগ এগুলো।

বিভিন্ন অনুসন্ধান করে জানা গেছে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রধান সহকারী কাম হিসাবরক্ষক আশরাফুল মজিদের নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট পরিচালিত হয়ে আসছে। প্রধান সহকারী কাম হিসাবরক্ষক আশরাফুল মজিদ ও জেলা যুবলীগের এক নেতার যোগসাজসে মূল ঠিকাদারকে পাশ কাটিয়ে আউট সোর্সিং এর এই ২৯ জন জনবল নিয়োগের পায়তারা চলছে। এটি সফল হলে এই সিন্ডিকেট ৪০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিতে সক্ষম হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 nbnews71.com
Design & Developed BY NB Web Host