শিরোনাম

কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলে করোনাভাইরাসের সচেতনায় সরকারি নির্দেশনা মানছেন না

রুহুল আমিন রুকু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রাম জেলার নদনদী অবহিত বিভিন্ন চরাঞ্চলে প্রাণঘাতী করনা ভাইরাস সম্পর্কে তেমন কোন সচেতন প্রচারণা না থাকায় বিভিন্ন হাট বাজার ও রাস্তা ঘাটে দিব্যি চলাচল ভীড় জমাচ্ছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, কুড়িগ্রাম জেলার সদর উপজেলার পাঁচগাছী ইউনিয়নের ওয়াবদার হাট, ভেলুর হাট, গারুহারা মাঝিপাড়া, উত্তর কদমতলা বাধ রাস্তা, নেওয়া বস।মোগলবাসা ইউনিয়নের চরসিতাইঝাড় নয়ারহাট, বল্টুর মোড়।উলিপুর উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের মোল্লারহাট, কড্ডার মোড় একতা বাজার ও চৌমুহনী বাজার সহ বিভিন্ন রাস্তা গুলোতে চায়ের দোকান পানের দোকান সেলুনে ভিড় জমাচ্ছে অযথা ঘোরাঘুরি খোলামেলা ধূমপান হোটেলের চা নাস্তা খাবার খাচ্ছে। নেই মাস্ক ব্যবহার একসাথে অনেক আড্ডা লক্ষ্য করা গেছে। স্থানীয় অনেকে জানান করোনা ভাইরাস সম্পর্কে শুনেছি তবে কিভাবে সচেতন হতে হয় তা অনেকের জানানেই দেশ যখন প্রাণঘাতী করনা ভাইরাসে আতঙ্ক সরকার সচেতন মূলক নির্দেশনা জারি করেছেন ২৬ মার্চ হইতে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেন। নিজ নিজ ঘরে থাকার নির্দেশনা প্রদান করেন। তা কেউ মানছেন না। সচেতনমহলের দাবি করেন এসব অঞ্চলগুলোতে শিক্ষিতর হার কম থাকায় অনেকে গুজব বলে ধারণা করছেন তবে সচেতন মূলক প্রচারণা ও প্রশাসনের নজরদারি থাকলে জনসচেতন ও সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন সম্ভব এ প্রতিবেদককে সাথে ২৬ মার্চ মোবাইলফোনে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি মাহফুজার রহমান সাথে কথা হলে তিনি জানান চরাঞ্চলে ছোট-বড় হাটবাজার সচেতন জন্য সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান কে মেসেজ দেওয়া হয়েছে। মোগলবাসা ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান বাবলু মিয়া সঙ্গে কথা হবে তিনি জানান বিষয়টি আমি হাটবাজারে জানিয়েছি মানুষ নিজের ভালো চায় না তবে আগামীকাল ব্যাপকভাবে জানানো হবে উলিপুর থানার অন্তর্ভুক্ত নামাজের চর পুলিশ ফাঁড়ির এস আই আশরাফের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান যাতায়াতে তিন ঘন্টা সময় লাগে।
শুক্রবার মোল্লারহাটে চৌকিদার এর মাধ্যমে ঢোল পিটিয়ে করনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করা হবে তা না মানলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *