কমলনগরে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে ছাত্রীর কানের দুল ছিনতাইয়ের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে ঢুকে মিশু আক্তার (৭) নামে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীর কানের স্বর্ণের দুল ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। বুধবার (১৮ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে উপজেলার চরপাগলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ইউপি সদস্য বিষয়টি জেনে রিয়াজকে ডেকে আনলে স্থানীয় দুই শ্রমিক লীগ নেতা তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিশু শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে রয়েছে।

মিশু তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের চরপাগলা গ্রামের প্রবাসী মোসলেহ উদ্দিনের মেয়ে। অভিযুক্ত রিয়াজ একই গ্রামের মৃত নুরুজ্জামানের ছেলে ও তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক। সে লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

ওই ছাত্রীর চাচা নিজাম উদ্দিন বলেন, ঘটনার সময় মিশু বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে যায়। এসময় হঠাৎ রিয়াজ শ্রেণিকক্ষে ঢুকে তার কান থেকে জোর করে স্বর্ণের দুল নিয়ে যায়। তখনও শ্রেণিকক্ষে অন্য শিক্ষার্থী এসে পৌঁছায়নি। বিষয়টি প্রধান শিক্ষক ও স্থানীয় ইউপি সদস্যকে জানিয়েছি।

তোরাবগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ইসমাইল হোসেন বলেন, মিশুর অভিভাবক ও বিদ্যালয় থেকে বিষয়টি আমাকে জানিয়েছে। পরে আমি রিয়াজকে ফাজিল বেপারীর হাটে ডেকে আনি। এসময় তোরাবগঞ্জ ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের যুগ্ম-আহবায়ক আলাউদ্দিন ও শ্রমিক লীগ নেতা সুমন তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

বক্তব্য জানতে অভিযুক্ত রিয়াজের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি। তবে তোরাবগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি তানজুর রহমান রুবেল বলেন, ঘটনাটি জেনেছি। ওই ছাত্রীর অভিভাবক ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বৈঠক করা হবে। অভিযোগটি প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইউনুছ বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। আমরা এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। এনিয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত যুবককে হাজির করার জন্য তার পরিবারকে নির্দেশ দেওয়া হয়। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More