উখিয়ায় এক গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে পরস্পর বিরোধী অভিযোগ!

 

নিজস্বপ্রতিবেদক,উখিয়া,কক্সবাজারঃ

কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালীতে পারিবারিক কলহে এক গৃহবধূ আত্নহত্যা করেছে মর্মে শ্বশুর পক্ষের দাবী। নিহতের স্বজনদের দাবী এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। খবর পেয়ে উখিয়া থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।শুক্রবার (৪ জুন) রাত ১০ টার দিকে পালংখালী বাজার এলাকায় ইউপি মেম্বার নুরুল হকের ছোট ভাই জিয়াবুল হকের বাড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পালংখালী বাজার এলাকার নাজির আহমদের ছেলে জিয়াবুল হক এর স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তার (১৭) বাড়িতে কেউ না থাকা অবস্থায় ফ্যানে উড়না পেছিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্নহত্যা করেছে।
মুমূর্ষু অবস্থায় এলাকাবাসী উদ্ধার করে দ্রুত গয়ালমারা মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চার বছর পূর্বে পালংখালী ইউপির মোছারখোলা এলাকার নুরুল আলম তার অপ্রাপ্ত বয়স্ক শিশু কন্যা ইয়াছমিন আক্তারের সাথে পালংখালী বাজার এলাকার মৃত নাজির আহমদের ছেলে জিয়াবুল হকের বিয়ে হয়। তখন মেয়ের বয়স ছিল মাত্র ১২/১৩ বছর।তখন থেকে তাদের সংসারে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকতো। এপর্যন্ত তাদের সংসারে সন্তান না হওয়াকে কেন্দ্র করে পারিবারিক কলহ আরও বাড়ে।
একপর্যায়ে স্বামী জিয়াবুল হক আরেকটি বিয়ে করার জন্য তার স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তারের উপর চাপ দেয় এবং রোহিঙ্গা নারী বিয়ে করবে বলে জানালে তার বতর্মান স্ত্রী ইয়াছমিন আক্তার আত্নহত্যা করে।নিহতের পিতা বলছে তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে তদন্ত কর্মকর্তা ও উখিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মো: সালমান লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More