রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
কুড়িগ্রামে রেলের জমি থেকে উচ্ছেদকৃত বাস্তহারাদের ডিসি অফিস অবস্থান কর্মসূচি জয়পুরহাট পৌরসভার সীমানা বর্ধিত করে পল্লী এলাকাকে সংযুক্ত করার প্রতিবাদ গোবিন্দগঞ্জে দুবৃর্ত্তদের হাতে আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্কুল ছাত্রের মৃত্যু গোবিন্দগঞ্জে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত স্বামীকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী হবেন নুসরাত ফারিয়া ‘আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় শুরু হয় তখন যখন আমি কেবিসি জিতি’ -সুশীল কুমার। রাণীশংকৈলে পেঁয়াজে গড়ম ঝাঁঝ, প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১০০ টাকা নড়াইল কালনা সড়কের উপরে মাছের  আড়ৎ  রাণীশংকৈল পৌরসভা নির্বাচন, সাম্ভাব্য প্রার্থীদের আগাম গণসংযোগ নড়াইলে ডিবি পুলিশের অভিযানে পলাতক দুই আসামি ৯৭ পিচ ইয়াবাসহ গ্রেফতার   
‘আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় শুরু হয় তখন যখন আমি কেবিসি জিতি’ -সুশীল কুমার।

‘আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় শুরু হয় তখন যখন আমি কেবিসি জিতি’ -সুশীল কুমার।

৫ কোটি টাকাই কাল হলো তার!
৫ কোটি টাকাই কাল হলো তার!

কৌন বনেগা ক্রোড়পতি। ভারতে খুবই জনপ্রিয় একটি রিয়েলিটি শো। এটি উপস্থাপনা করেন বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন। নানা বয়সের মানুষেরা এখানে আসেন। অংশ নেন প্রশ্ন-উত্তর পর্বে। এখানে জিতে নেয়ার সুযোগ আছে কোটি কোটি টাকা। এখন পর্যন্ত অনেকেরই ভাগ্য বদলে দিয়েছে ।

এবার প্রকাশ্যে এলো ভিন্ন এক খবর। যেখান থেকে জানা গেল, কেবিসিতে ৫ কোটি টাকা জিতে নিজের জীবনের জন্য অভিশাপ বয়ে এনেছেন সুশীল কুমার নামে একজন।

ভারতীয় মিডিয়া জানায়, ২০১১ সালে কেবিসির পঞ্চম সিজনে অমিতাভ বচ্চনের হাত থেকে পাঁচ কোটি টাকার চেক জিতে নিয়ে চমকে দিয়েছিলেন দেশবাসীকে। সেই এপিসোড যারা দেখেছিলেন, তারা প্রত্যেকেই সুশীলের সাফল্যের কাহিনির তারিফ করেছিলেন। ধরেই নেওয়া হয়েছিল, এই টাকা জয়ের পর তার জীবনযাত্রা সুগম হবে, সব বাধা দূর হবে। কিন্তু তা হয়নি।

বরং তার জীবন আরও বেশি কঠিন এবং চ্যালেঞ্জিং হয়ে গেছে। সেই চ্যালেঞ্জের কথাই সম্প্রতি এক ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন বিহারের বাসিন্দা সুশীল।

‘আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় শুরু হয় তখন যখন আমি কেবিসি জিতি’- এই শীর্ষক পোস্টে সুশীল জানান, ওই অনুষ্ঠানে জয়ের পর মাসের মধ্যে প্রায় ১৫ দিনই তিনি বিহারের নানা অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হতেন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতেন, এমনকি চটজলদি বেশকিছু ব্যবসায়ও বিনিয়োগ করেন, যাতে সংবাদমাধ্যমে বলতে পারেন, তিনি কী কী করেছেন। কিন্তু বেশিরভাগ ব্যবসাই ডুবে যায়। এই ব্যস্ততার মধ্যে থাকতে থাকতে তার পড়াশোনা শিকেয় ওঠে।

এদিকে কেবিসিতে পাঁচ কোটি টাকা জেতার পর সমাজকর্মী হিসেবেও কাজ শুরু করেন সুশীল। প্রতি মাসে বিভিন্ন সংস্থায় হাজার হাজার টাকা অনুদান দিতে থাকেন। এই করে তার হাত থেকে অনেকটাই অর্থ বেরিয়ে যায়। তিনি প্রতারণার কবলেও পড়েন। মানুষের ওপর থেকে বিশ্বাস হারিয়ে যায় তার।

এসব নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে বচসা বাধতে শুরু করে সুশীলের। পরিস্থিতি এতটাই খারাপের দিকে চলে যায় যে এক সময় স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হতেও বসেছিল তার। এও জানিয়েছেন, তিনি সব অর্থ খুইয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। একসময় মাদকাসক্তও হয়ে পড়েন তিনি। ঠিক করেন, পেশা বদলাবেন। পরিচালক হবেন বলে ঠিক করেন। মুম্বাইয়ে পাড়ি দেন। কিন্তু বড় পর্দার বদলে টেলিভিশনের জন্য চিত্রনাট্য লেখার কাজ শুরু করেন। তার লেখা একটি চিত্রনাট্য ২০ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

২০১৬ সালে মুম্বাই থেকে চম্পারণে ফিরে আসেন সুশীল। মদ-মাদকের নেশা পুরোপুরি ছেড়ে দিয়ে শিক্ষক হিসেবে নতুন জীবন শুরু করেছেন। গত এক বছরে সিগারেটে হাতই দেননি বলেও গর্ব করে জানিয়েছেন সুশীল।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 nbnews71.com
Design & Developed BY NB Web Host