শিরোনাম

আদমদীঘি সান্তাহার কদমা-করজবাড়ী রোডের বেইলী ব্রীজের বেহাল দশা

Spread the love

আতিকুর হাসান, আদমদীঘি(বগুড়া)প্রতিনিধি: সান্তাহারের ঐতিহাসিক রক্তদহ বিলের উপর নির্মিত বেইলী ব্রীজটি জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার পরও ব্রীজটি দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন জনসাধারনসহ যানবাহন। ফলে যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
সরেজমিন দেখা গেছে, রক্তদহ বিলের উপর নির্মিত বেইলী ব্রীজ দিয়ে আদমদীঘি সদর ইউনিয়ন ও পাশ্ববর্তী রানীনগর উপজেলার কিছু অংশসহ বিভিন্ন এলাকার জনসাধারন এবং বিভিন্ন ধরনের পরিবহন ঝুঁকি নিয়ে ব্রীজের ওপর দিয়ে চলাচল করছে। বেইলী ব্রীজটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না কারায় ব্রীজের পাটাতনগুলো নষ্ট হওয়ার ফলে ব্রীজটি দিয়ে অতি ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে লোকজন।এই ব্রীজটি সান্তাহার পৌর শহরের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র পথ। জংশন স্টেশন, হাটবাজার, স্কুল কলেজ, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, চাকরিসহ বিভিন্ন কাজে ওই এলাকার ১০/১৫ গ্রামের হাজার হাজার লোকজন এই বেইলী ব্রীজটির ওপর দিয়ে সান্তাহারে আসেন।জানা গেছে, কদমা মৎস্য খামারের নিকট রক্তদহ বিলে খালের উপড় ২০০৬ সালে সড়ক ও জনপদ বিভাগের তত্বাবধানে ৬০.৯৬ মিটার দৈর্ঘ্য রক্তদহ স্টিল ব্রীজটি নির্মাণ করা হয়। রক্তদহ বিলের উপর বেইলী ব্রীজটির নির্মাণ কাজ শেষে ২০০৬ সালে ১৬ মার্চ জনগনের চলাচলের জন্য ব্রীজটি উদ্বোধন করা হয়। কিন্ত অল্প কয়েক বছর অতিবাহিত হতেই ব্রীজের পাটাতনের জোড়া খুলে নড়বড়ে হয়ে যায়।ব্রীজ নির্মাণের দীর্ঘ ১১ বছরে কোনো সংস্কার কাজ করা হয়নি। ব্রীজটি ফাঁকা জায়গায় হওয়ায় সেখানে মাদকসেবীরা মাদক গ্রহণ শেষে ব্রীজের রেলিংয়ের এ্যাংগেল নাটবল্টু চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। ফলে বেইলী ব্রীজটি নরবড়ে অবস্থায় রয়েছে।
এ ছাড়াও, পাটাতন ভেঙ্গে যাওয়ায় ব্রীজের ওপড় দিয়ে যানবাহন ও সাধারন মানুষদের চলাচল মারাত্বক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। যে কোনো মূহুতে পাটাতন ভেঙ্গে প্রানহানিসহ বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। এলাকাবাসী বেইলী ব্রীজের পরিবর্তে ঢালাই ব্রীজ নির্মাণ করার দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *