আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে উন্নয়ন হয়, বিএনপি-জামায়াত লুটে খায়

এনবিনিউজ একাত্তর: আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগই উন্নয়নের রাজনীতি করে। নৌকায় ভোট দিলে কেউ খালি হাতে ফেরে না। অন্যদিকে বিএনপি-জামায়াত সরকারে এলে লুটে খায়।

আজ রোববার চাঁদপুর স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময় শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে তখন উন্নয়নের ধারাবাহিকতা থাকে। ২০১৪ সালে আমরা পুনর্নির্বাচিত হয়েছিলাম বলেই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে পেরেছি। এই উন্নয়ন ধরে রাখতে সরকারের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে।

এসময় চাঁদপুরের উন্নয়নে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চাঁদপুরের উন্নয়নে আপনাদের কোনও দাবি করা লাগবে না। নৌকা মার্কায় ভোট দিন, আমরা নিজেরাই চাঁদপুরের সব উন্নয়ন করে দেবো। তিনি জনসভায় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ডা. দীপুমনিকে দেখিয়ে বলেন, আপনাদের এই জনপ্রতিনিধি ডাক্তার। সে আমার কাছে আগেই চাঁদপুরে একটা মেডিকেল কলেজ করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে। কথা দিয়েছি, চাঁদপুরে মেডিকেল কলেজ করে দেবো।

এখানে পর্যটনের প্রচুর সুযোগ আছে। বিশেষ করে পদ্মা ও মেঘনা যেখানে মিলেছে নৌভ্রমণের জন্য এ জায়গা সব থেকে সুন্দর। সেই জায়গাটা দেখতে দেশবাসীকে সুযোগ করে দেবো। চাঁদপুরে হবে পর্যটন কেন্দ্র।

চাঁদপুরের হাইমচরে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখানে বিনিয়োগের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়াও এখানে একটা নৌবন্দর করে দেবো । এসময় নদীভাঙন কবলিত এলাকাগুলো সংস্কারসহ এ এলাকার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের দোড়গোড়ায় আমরা চিকিৎসাসেবা পৌঁছে দিয়েছি। আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্ত, বাংলাদেশের একটা মানুষও গৃহহারা থাকবে না। যাদের ঘর নাই, বাড়ি নাই আমরা তাদের বাড়িঘর করে দিচ্ছি। আমরা চাই না দেশের মানুষ ভিক্ষা করে চলুক। এজন্য দেশকে ভিক্ষামুক্ত করার চেষ্টা করছি। তিনি বলেন, এ কাজটি শুরু করেছিলেন খুলনা জেলা প্রশাসক। এজন্য তাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে উন্নীত হয়েছে। বিশ্ব দরবারে আমাদের মাথা উঁচু হয়েছে।

পদ্মা ও মেঘনা নদী তীরবর্তী জেলা চাঁদপুরের মৎস্যজীবী ও জেলেদের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সব মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। যখন ইলিশ শিকার বন্ধ থাকে তখন আমরা জেলেদের মাসে ৪০ কেজি করে চাল দেই। তাদের দুর্দশা রোধে আমরা পদক্ষেপ নিয়ে যাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী ২০২১ সালের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী, ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন ও ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করার অঙ্গীকার করেন।

জনসভায় বিএনপিকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, এতিমদের জন্য টাকা এনে তারা সে টাকা মেরে দিয়েছে। তারেক রহমানের বিরুদ্ধে টাকা পাচারের অভিযোগে বিদেশে মামলা হয়েছে। আমরা সে টাকা সেখান থেকে ফেরত এনেছি।

তিনি বলেন, নৌকা উন্নয়নের মার্কা, এটা আপনাদের মার্কা। নৌকা মানুষ, পশুপাখি সবাইকে রক্ষা করে। নূহ নবীর (আ.) সময়েও নৌকা সবাইকে বিপদ থেকে রক্ষা করেছিল। তাই উন্নয়ন ও ধারাবাহিকতা রক্ষায় নৌকা মার্কায় ভোট দিতে সবাইকে আহ্বান জানাচ্ছি। এসময় তিনি নৌকায় ভোট দেওয়ার ব্যাপারে উপস্থিত জনতাকে দুই হাত তুলে অঙ্গীকার করতে বলেন। জনতাও দুই হাত তুলে তাদের সমর্থন ব্যক্ত করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা কম্পিউটার শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব করেছি। আমাদের ছেলে-মেয়েরা যেনো ডিজিডাল বাংলাদে গড়ে তুলেছি। এখন তারা নিজের ঘরে বসে কাজ পাচ্ছে। কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা এটাই আমাদের লক্ষ্য।

এর আগে চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দিয়ে ৪৮টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রী হাইমচর উপজেলায় বাংলাদেশ স্কাউটসের ষষ্ঠ জাতীয় কমডেকাও উদ্বোধন করেন।

এর আগে সর্বশেষ ২০১০ সালের ২৫ এপ্রিল আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁদপুর এসেছিলেন।

মতামত দিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More